বেগুনের ক্ষতিকর দিক

Solved431 viewsজীববিজ্ঞানপুষ্টি
0

বেগুনের কি কোন ক্ষতিকারক দিক আছে? এর উপকারী কি কি পুষ্টিগুণ আছে বিস্তারিত জানতে চাই।

আরাফাত রহমান Changed status to publish October 29, 2021
1

প্রথমে বেগুণ বাবাজীর ক্ষতিকর দিক নিয়েই কথা বলি। একটা সময়ে বিটি বেগুণ আলোচনার তুঙ্গে ছিল। এই বেগুণ আসলেই ক্ষতিকর! ভয় পাবেন না, মানুষের জন্য নয়, বরং পোকা-মাকড়দের জন্য ক্ষতিকর। বিটি বেগুন বিষাক্ত- এই কথা শুধুমাত্র লেপিডপ্তেরা গোত্র ভুক্ত নির্দিষ্ট কিছু কিট পতঙ্গের জন্য প্রযোজ্য, স্তন্যপায়ীদের জন্য নয়। এ ব্যাপারে বিজ্ঞান ব্লগের “বিটি বেগুন :আসলেই কি ক্ষতিকর” প্রবন্ধটি পড়ুন।
আবার, যারা অ্যালার্জি কিংবা অ্যাজমার রোগী, তাদের ক্ষেত্রে বেগুণ গ্রহণে নিয়ম-কানুন রয়েছে। তবে সাধারণ সুস্থ মানুষ বেগুণ খেলে তার কোনো ক্ষতি হয়ে যাবে বলে এখনো প্রমাণিত হয়নি।

এবার আসি, বেগুণের পুষ্টিগুণের কথায়! সবজির জগতের রাজা হিসেবে পরিচিত বেগুন সম্পর্কে ঢাকার বারডেম জেনারেল হাসপাতালের জ্যেষ্ঠ পুষ্টিবিদ শামছুন্নাহার নাহিদ প্রথম আলোকে বলেন, “একদিকে বেগুন খেতে ভালো, অন্যদিকে প্রোটিন, ভিটামিন, খনিজে পূর্ণ। আছে খানিকটা কার্বোহাইড্রেট আর প্রচুর জলীয় অংশ। তাই যারা ওজন কমাতে চায়, তাদের জন্যও বেগুন খুব ভালো সবজি। তবে যাদের গেঁটে বাত আছে, কিংবা অ্যাজমা ও অ্যালার্জি থাকে, তাদের বেলায় বেগুনে খানিকটা বিধিনিষেধ আছে।” এছাড়াও সপ্তাহে ১-২ দিন বেগুন খাওয়ার অভ্যাস করলে ত্বকের সৌন্দর্য বৃ্দ্ধি পায়। বেগুনে রয়েছে পটাশিয়ামসহ একাধিক উপকারি খনিজ, যা শরীরে ইলেকট্রোলাইট ব্যালেন্স বজায় রাখে। সেই সঙ্গে শরীরে লবণের পরিমাণও স্বাভাবিক মাত্রার মধ্যে থাকে। ফলে রক্তচাপ বাড়ার সুযোগ থাকে না। বেগুনে প্রচুর ক্যালসিয়াম ও ম্যাগনেশিয়াম থাকায় এটি দাঁত ও হাড়ের জন্য খুব উপকারী।
বেগুনে থাকা ফটোনিউট্রিয়েন্ট সেল মেমব্রেনকে নানাবিধ আঘাত থেকে রক্ষা করে। ফলে মস্তিষ্কের ক্ষয় রোধ হয় এবং স্মৃতিশক্তি বৃ্দ্ধি পায়।
ফাইবার এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্টে পরিপূর্ণ এই সবজিটি মাঝে মধ্যে খেলে শরীরে টক্সিক উপাদানের মাত্রা কমতে শুরু করে। সেই সঙ্গে ক্যান্সার সেলের জন্ম হওয়ার সম্ভাবনাও কমে। পাকস্থলী, ক্ষুদ্রান্ত্র, বৃহদন্ত্রের ক্যানসারকে প্রতিরোধ করার এক অসাধারণ ক্ষমতা আছে বেগুনের। এছাড়াও বেগুণ ডায়াবেটিস এবং হার্ট অ্যাটাককে প্রতিরোধ করে। বেগুনে আছে প্রচুর পরিমাণ ডায়াটারি ফাইবার, যা খাবার হজমে সাহায্য করে এবং কোষ্ঠ্যকাঠিন্য দূর করতে সাহায্য করে। যাদের রক্তে ক্ষতিকর কোলেস্টেরলের পরিমাণ বেশি, তাদের জন্য বেগুন অত্যন্ত জরুরি। বেগুন ক্ষতিকর কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে সক্ষম।

তো, বেগুণের উপকারিতা নিয়ে বলতে থাকলে একটা ব্লগ পোস্ট লিখে ফেলা যাবে! তাই আর বেশি কিছু বললাম না। সবশেষে একটা কথাই বলব, নিয়মানুসারে বেগুণ খান এবং শরীরকে শক্তিশালী করুন।

আরাফাত রহমান Posted new comment October 27, 2021

দারুন লেখাটির জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ!